Wednesday, February 8, 2023

    প্রতিবছর লক্ষ করি আমাদের দেশে চাল সংকট। দেশে মানুষের খাবারের জন্য বর্তমানে চালের চাহিদা বছরে তিন কোটি টন চালের ও কিছু বেশি। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার পরিসংখ্যান এ বলছে, এই চাহিদার তুলনায় দেশে চালের উৎপাদন অনেক বেশি। কিন্তু ‘সংকট’ দেখিয়ে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে আমদানি করা হচ্ছে কয়েক লাখ টন চাল। মিলাররা বলছেন, চাল বছরের পর বছর মজুত করে রাখার জিনিস নয়, সংকট যদি না থাকবে তাহলে আমাদের উৎপাদিত চাল যায় কোথায়? চাহিদার চেয়ে উৎপাদন বেশি, তবু চালের সংকট!

    টানা কয়েক বছর দেশে চাহিদার চেয়ে অনেক বেশি চাল উৎপাদন হচ্ছে। গত অর্থবছর (২০২১-২২) দেশে চালের উৎপাদন ছিল তিন কোটি ৬৮ লাখ ৫০ হাজার টন। চলতি মৌসুমেও উৎপাদন হচ্ছে এর কাছাকাছি চাল । তবে বাস্তবতা টা ভিন্ন। চাল সংকট আমাদের নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে তাই চাহিদা মেটাতে চাল আমদানির জন্য মরিয়া সরকার এবং বেসরকারি খাতকেও নানান সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হচ্ছে চাল আমদানির জন্য।

    বাংলাদেশের কৃষি গবেষক ও অর্থনীতিবিদ জাহাঙ্গীর আলম খান নিউজ প্রতিনিধিকে বলেন, কৃষি মন্ত্রণালয় এবং এর অধীন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উৎপাদন ও চাহিদা নিয়ে যে তথ্য দেয় সেটা অনেক সময় মেলে না। কিন্তু তাদের তথ্যের সঙ্গে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) তথ্যে বড় ধরনের ফারাক দেখা যায়। তাছাড়াও যে তথ্য দেওয়া হয় তা সামঞ্জস্যহীন।

    এ বিষয় বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্ট্যাডিজের (বিআইডিএস) সাবেক গবেষণা পরিচালক ড. এম আসাদুজ্জামান নিউজ প্রতিনিধিকে বলেন, দেশে খাদ্য সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্তে গরমিল আছে। মন্ত্রীরাও একেকজন একেক রকম তথ্য দেন। তাদের দপ্তরেও মেলে আলাদা আলাদা তথ্য। চাহিদার চেয়ে উৎপাদন বেশি, তবু চালের সংকট!

    চালের তথ্য নিয়ে এখনো কেউ পরিষ্কার বলতে পারেন না। প্রকৃত উৎপাদন কতটুকু হলো, কতটুকু মানুষ খেয়েছে? তবে চাল নিয়ে বিভিন্ন সংস্থা বিভিন্ন তথ্য দেয়। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, আমরা দানাদার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। বাড়তি চালও হয়। তবে কেন প্রতি বছর ২০ লাখ টনের মতো চাল আমদানি হচ্ছে? কিন্তু বছরে এ পরিমাণ চাল উদ্বৃত্ত থাকার কথা ছিল

    আরো পড়ুন :সুস্থ থাকতে মেনে চলুন এই কয়েকটি টিপস

    সরকারের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের তথ্য বলছে, গত বছর দেশে মোট চাল উৎপাদিত হয়েছে ৩ কোটি ৮৬ লাখ টন। অন্যদিকে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসাব অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রতিটি লোকের জন্য চাল ৪১৬ গ্রাম । এ হিসাবে বার্ষিক প্রতিটি লোকের জন্য চালের প্রয়োজন চালের ১৫২ কেজি। দেশে প্রতিবছরই মোট চালের চাহিদা সেক্ষেত্রে ২ কোটি ৫৮ লাখ ৪০ হাজার টন। পরিসংখ্যান ব্যুরোর চালের এ হিসাবটি ২০১৯ সালের। তখন দেশে জনসংখ্যা ১৭ কোটি ধরে হিসাব করেছে সংস্থাটি।

    সেই হিসাবটি ধরে জনসংখ্যা বিবেচনায় চালের চাহিদা দাঁড়ায় ৩ কোটি ১০ লাখ টন। এর সঙ্গে বীজ, অপচয় ও পশুখাদ্য হিসেবে আরও ১৫ শতাংশ যোগ করা হলে মোট চাহিদা দাঁড়ায় ৩ কোটি ৫৬ লাখ টন। তবে গত অর্থবছরে ৩০ লাখ টন চাল উদ্বৃত্ত থাকার কথা ছিল

    কিন্তু বাস্তবতা হলো, দেশে একই সময়ে (২০২১-২২ অর্থবছর) সরকারি-বেসরকারি মিলে প্রায় ২০ লাখ টন চাল আমদানি করতে হয়েছে।
    চলতি অর্থবছর এ আমদানি আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

    আরো পড়ুন : প্রবৃদ্ধিতে চীন ও ভারতকে ছাড়িয়ে যাবে বাংলাদেশ

    0 Comments

    Leave a Comment

    This is a Sidebar position. Add your widgets in this position using Default Sidebar or a custom sidebar.

    Exit mobile version